ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স নেয়ার উপায়(গ্রামীণফোন, রবি, এয়ারটেল,বাংলালিংক,টেলিটক)

একসময় মোবাইলের ব্যাল্যান্স শেষ হয়ে গেলে মিস কল ছাড়া আর কোন গতি ছিল না। কিন্তু বর্তমানে অপারেটররা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নামে এক ফিচারের মাধ্যমে গ্রাহকদেরকে আর ব্যাল্যান্সহীন অবস্থায় অচল থাকতে দিচ্ছে না। সব মোবাইল অপারেটরই তাদের নিজস্ব বিভিন্ন শর্তের মাধ্যমে গ্রাহকদেরকে ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স দিচ্ছে। একেক অপাররেটরের এমার্জেন্সি ব্যালেন্স পাওয়ার শর্ট কোড ও শর্ত একেক রকম। তাই বিপদের সময় সবকিছু একসাথে পেতেই আজকের এই পোস্ট।

গ্রামীণফোন ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স
  • শর্ট কোডঃ *121*1*3#
  • পরিমাণঃ সর্বনিম্ন ১১ টাকা থেকে গ্রাহকভেদে সর্বোচ্চ ২০০ টাকা
রবি ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স
  • শর্ট কোডঃ *123*007# অথবা START O লিখে 8811 নম্বরে পাঠান।
  • পরিমাণঃ সর্বনিম্ন ২১ টাকা থেকে গ্রাহকভেদে সর্বোচ্চ ১০০ টাকা
এয়ারটেল ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স
  • শর্ট কোডঃ *141# অথবা ডায়াল 20141
  • পরিমাণঃ গ্রাহকভেদে ১২, ২২ কিংবা ৩২ টাকা
বাংলালিংক ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স
  • শর্ট কোডঃ *874#
  • পরিমাণঃ গ্রাহকভেদে সর্বনিম্ন ১০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০০ টাকা
টেলিটক ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স
  • শর্ট কোডঃ *1122# অথবা YES লিখে 1122 নম্বরে পাঠান
  • পরিমাণঃ গ্রাহকভেদে ১০, ২০, ৩০ কিংবা ৫০ টাকা পাবেন।